Plant science

উদ্ভিদ কি পারে প্রাকৃতিক ওয়েব সিস্টেম ব্যবহার করে সোশ্যাল নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে?

প্রায় ৫০০ মিলিয়ন বছর আগে থেকেই উদ্ভিদকূল গড়ে তুলেছে এক অনন্য প্রাকৃতিক ওয়েব সিস্টেম। বলছিলাম উদ্ভিদের সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং এর ব্যাপারে! মানুষ যেমন মানুষের সাথে যোগাযোগ করার মাধ্যম আছে, উদ্ভিদেরও আছে তাদের নিজস্ব প্রাকৃতিক যোগাযোগ মাধ্যম। যাকে বলা হয় উড ওয়াইড ওয়েব।

উড ওয়াইড ওয়েব এ অপটিক ফাইবারের কাজ করে ছত্রাক। ছত্রাকের বিস্তৃত নেটওয়ার্ক কাছের কিংবা দূরের উদ্ভিদসমূহের মধ্যে একটা যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি করে। বিস্তৃত এ নেটওয়ার্কের মাধ্যমে উদ্ভিদ নিজেদের মধ্যে কার্বন,নাইট্রোজেন, ফসফরাস সহ অন্যান্য রাসায়নিক  পদার্থ এবং পানি আদান-প্রদান করে থাকে। আসুন এ সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জেনে নেয়া যাক।

Image Source: albertonrecord.co.za


উদ্ভিদ মূলের আশেপাশে ছড়িয়ে থাকে প্রচুর পরিমাণ  ছত্রাকের হাইফাল নেটওয়ার্ক যাদেরকে ‘আন্ডারগ্রাউন্ড হাইফাল নেটওয়ার্ক’ ও বলা হয়ে থাকে। এগুলো উদ্ভিদ মূলের সাথে একপ্রকার সিমবায়োটিক রিলেশন তৈরি করে যার উদ্দেশ্য উদ্ভিদ থেকে ফটেসিনথেসিসের মাধ্যমে তৈরি স্যুগার জাতীয় খাবার গ্রহণ করা এবং উদ্ভিদকে মাটি থেকে শোষণ করা কার্বন, ফসফরাস,নাইট্রোজেন, পানি ইত্যাদির যোগান দেয়া। জেনে রাখা ভালো যখন ভিন্নধর্মী দুটি জীব নিজেদের সুবিধা বা প্রয়োজনের তাগিদে একে অপরের উপর নির্ভরশীল থাকে এবং সম্পর্ক তৈরি করে তখন তাকে বলা হয় সিমবায়োটিক রিলেশন। একটি ছত্রাক শুধুমাত্র একটি উদ্ভিদের সাথেই সিমবায়োটিক রিলেশন তৈরি করে না। বরং একটি ছত্রাক তার বিস্তৃত হাইফাল নেটওয়ার্ক কাজে লাগিয়ে প্রায় ১০ এর অধিক উদ্ভিদের সাথে যুক্ত থাকতে সক্ষম।এভাবেই সিমবায়োটিক রিলেশনের মাধ্যমে ছত্রাকের আন্ডারগ্রাউন্ড হাইফাল নেটওয়ার্ক তৈরি করে উড ওয়াইড ওয়েব। গবেষণায় দেখা গেছে একেকটি উদ্ভিদ প্রায় ৪৭ টির মতো উদ্ভিদের সাথে ছত্রাকের নেটওয়ার্কের মাধ্যমে উড ওয়াইড ওয়েবে যুক্ত।

উড ওয়াইড ওয়েব কাজে লাগিয়ে উদ্ভিদ কি কি করে?
কোন উদ্ভিদ যখন ফসফরাস,কার্বন বা নাইট্রোজেন সংকটে থাকে পার্শ্ববর্তী উদ্ভিদ তা সহজেই টের পায় এবং উড ওয়াইড ওয়েবের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় পদার্থ সরবরাহ করে থাকে। উড ওয়াইড ওয়েবের মাধ্যমে যে শুধু একটি নির্দিষ্ট প্রজাতির উদ্ভিদকূলের মধ্যে প্রয়োজনীয় জিনিস সরবরাহ হয়ে থাকে তা না, বরং বিভিন্ন প্রজাতির উদ্ভিদের মধ্যে চলে এ সরবরাহের প্রক্রিয়া। মাতৃ উদ্ভিদ তার চারাগাছগুলোকে পুষ্টি দেয়ার মাধ্যম হিসেবেও কিন্তু এই ওয়েব সিস্টেম ব্যবহার করে থাকে। শুধু কিন্তু তাই না, খরা মৌসুমে যখন কোন উদ্ভিদ পানির অভাব টের পেয়ে থাকে  তখন পার্শ্ববর্তী উদ্ভিদগুলোর মধ্যে এ তথ্য চলে যায় উড ওয়াইড ওয়েবের মাধ্যমে যাতে করে বেঁচে থাকার  প্রয়োজনীয় পানি উদ্ভিদগুলো জমা করে রাখতে পারে।
তাছাড়া, কোন উদ্ভিদ যখন বুঝতে পারে তার জীবন অবসানের পথে, তখন সে তার সমস্ত রাসায়নিক পুষ্টি উপাদান উড ওয়াইড ওয়েবের মাধ্যমে আশেপাশের উদ্ভিদে সরবরাহ করে দেয়। উদ্ভিদের নিজস্ব প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করতেও রয়েছে এই ওয়েব সিস্টেমের অবদান। উদ্ভিদ যখন পোকামাকড়, জীবাণু দ্বারা আক্রমণের শিকার হয় তখন তার ইমিউন সিস্টেম শক্তিশালী করতে কিছু নির্দিষ্ট রাসায়নিক পদার্থ তৈরি করে থাকে। এগুলোকে বলা হয় “ইমিউনো ক্যামিক্যাল”। এসব ইমিউনো ক্যামিক্যাল উদ্ভিদ তার নেটওয়ার্কে থাকা বাকি উদ্ভিদগুলোকে পাঠায় এবং একইসাথে সিগনাল দেয় যেন তারা তাদের ইমিউন সিস্টেমকে যোগ্য শক্তিশালী করে তুলে।

এতক্ষণ পর্যন্ত যা বললাম সবই উড ওয়াইড ওয়েব কেন উদ্ভিদের জন্য উপকারী। এগুলো ছাড়াও এর একটি নেতিবাচক দিক রয়েছে বৈকি! উদ্ভিদকূলে কিছু কম্পিটিটর উদ্ভিদ রয়েছে যাদের মধ্যে sycamores, acacias, eucalypts উল্লেখযোগ্য। এসকল উদ্ভিদ স্বভাবতই চায় না তাদের আশেপাশে অন্য জাতের উদ্ভিদ বেঁচে থাকুক। এসব কম্পিটিটর উদ্ভিদ যদি কোন উড ওয়াউড ওয়েব এ থাকে তবে ওই ওয়েবে থাকা অন্য প্রজাতির উদ্ভিদের পক্ষে বেঁচে থাকা কষ্টকর! কম্পিটিটর উদ্ভিদগুলো উড ওয়াইড ওয়েবে থাকা নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে ক্ষতিকারক রাসায়নিক পদার্থ এবং রোগসৃষ্টিকারী ভাইরাস,ব্যাকটেরিয়া পাঠিয়ে উক্ত নেটওয়ার্কে থাকা ভিন্ন প্রজাতির উদ্ভিদগুলোকে মেরে ফেলে। তবে এ জাতীয় উদ্ভিদের সংখ্যা নগণ্য এবং কিছু ক্ষেত্রে তাদের দ্বারা পাঠানো রাসায়নিক পদার্থ বা ভাইরাস,ব্যাকটেরিয়া অন্য উদ্ভিদকে মেরে ফেলার জন্য যথেষ্ট নয়।যার ফলে উড ওয়াইড ওয়েবের মাধ্যমে উদ্ভিদের জীবন নাশের ঘটনাও খুব কম।

উড ওয়াইড ওয়েবকে তাই বলা যায় Language of Tree” যা ব্যবহার করে উদ্ভিদ নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক ধরে রাখে, নিজেদের প্রয়োজন মেটায় এবং পরস্পর পরস্পরকে সহযোগিতা করে!


আয়েশা আক্তার

বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইন্জিনিয়ারিং বিভাগ,নোবিপ্রবি

হেড অব কন্টেন্ট ক্রিয়েশন,বায়ো ডেইলি


তথ্যসুত্রঃ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button