Medical ScienceWomen and Children

জন্মনাড়ি থেকে স্টেম সেল সংরক্ষন ও চিকিৎসা ক্ষেত্রে নতুন এক বিপ্লব

মাকসুদুল ইসলাম

আমাদের মানব শরীরে অনেক ধরনের কোষ আছে। প্রত্যেকটি কোষের নির্দিষ্ট কিছু কাজ রয়েছে যা মিলিয়ে আমাদের মানব দেহ পরিচালিত হচ্ছে। কিন্তু কোষের এই নির্দিষ্ট কাজগুলো শুরু থেকেই ছিল না, আস্তে আস্তে বিকশিত হয়েছে। যদি আমরা এমনভাবে চিন্তা করি যে, আমরা যখন ছোট ছিলাম তখন আমাদের স্বপ্ন ছিল অনেক বড় ও বিস্তৃত।  আমাদের মধ্যে সেই সম্ভাবনা ছিল যে আমরা চাইলেই যেকোন কিছু হতে পারি, সেটা যতটা অবিশ্বাসই হোক না কেন। কেউ বা স্বপ্ন দেখতাম যে ডাক্তার হব,কেউ ইঞ্জিনিয়ার, কেউ বা মুভির কোন নায়ক/নায়িকা, কেউ হয়ত বিশ্বের সবচেয়ে বড় নেতা। আস্তে আস্তে আমরা যখন পড়াশোনার ভিতর দিয়ে গিয়েছি, আমরা কোন একটা নির্দিষ্ট সেক্টরের ভিতরে কাজ করছি। আমাদের ভবিষ্যৎ এ আমরা কি করব তা আমরা যে লাইনে পড়াশোনা করেছি তার ভিতরে থেকেই সেটা নিয়ে কাজ করি। দেখা যাচ্ছে আমাদের বয়স হওয়ার সাথে সাথে আমাদের কাজ টাও অনেক টা নির্দিষ্ট হয়ে যায়। বায়োলোজির পরিভাষায় এর একটি টার্ম আছে যা হল পটেন্সি. যা বুঝায় কার কতটুকু বিকশিত হওয়ার ক্ষমতা আছে। এই উদাহরন টাই আমরা আমাদের কোষের ক্ষেত্রে দিতে পারি। প্রত্যেক টা কোষের আকার , কাজ ধীরে ধীরে বিকশিত হয়। শুরু তে প্রত্যেকটি কোষের যেকোন ধরনের কাজ করার সম্ভাবনা থাকে। ধীরে ধীরে কোষ গুলো একটি নিদিষ্ট কাজের বা জায়গার আওতায় পড়ে যায় যেমনঃ পেশী কোষ, যকৃত কোষ, স্নায়ু কোষ। স্টেম সেল এমন এক প্রকার কোষ যার এখনো মানব শরীরে নির্দিষ্ট কোন কার্যকারিতা নেই। তাই এটি যেকোনো ধরনের কোষ হওয়ার ক্ষমতা রাখে। বলা যেতে পারে স্টেম সেল হল অবিভাজিত কোষ যা পরে নির্দিষ্ট কার্যক্ষমতা প্রকাশ করে। স্টেম সেল শরীরের বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া যেতে পারে। সাধারন একে দুইভাগে ভাগ করা যায়ঃ পরিনত টিস্যু হতে প্রাপ্ত স্টেম সেল এবং ভ্রূণ হতে প্রাপ্ত স্টেম সেল। পরিনত টিস্যু থেকে যে স্টেম সেল গুলো পাওয়া যায় তা কম সংখ্যক কোষে পরিনত হবার ক্ষমতা রাখে। কিন্তু ভ্রূণ হতে যে স্টেম সেল পাওয়া যায় তার বিভাজিত হবার ক্ষমতা বেশি এবং যেকোন ধরনের কোষ হতে পারে। 

গর্ভ ধারনের প্রায় ৪-৫ দিন পর ভ্রূণ একটি পর্যায়ে যায় যাকে বলা হয় ব্লাস্টোসিস্ট। এই সময় ভ্রূণে প্রায় ৫০-১০০ টির মত কোষ থাকে। ব্লাস্টোসিস্টের মাঝে একটি জায়গা থাকে যাকে বলা হয় ইনার সেল মাস। স্টেম সেল গুলো সাধারনত এখানেই থাকে। এই স্টেম সেলেরই অদ্ভুত এক ক্ষমতা রয়েছে যা শরীরের যেকোনো কোষে পরিণত হতে পারে। বিজ্ঞানী এবং গবেষকরা এখান থেকে স্টেম সেল সংরক্ষন করে গবেষণার কাজ চালিয়ে যেতে পারেন। কিন্তু যেহেতু এটি একটি ভ্রূণ থেকে সংরক্ষন করা হবে তাই নৈতিক বাধা থেকে যায়।  ভ্রূণ থেকে সংরক্ষন করা না গেলেও মানব দেহের যে জন্ম নাড়ি থাকে তা সরাসরি মায়ের সাথে সন্তানের সংযোগ থাকে। জন্মের সময় এই জন্মনাড়ি টা কেটে ফেলা হয়। এই নাড়ির মধ্যে প্রচুর পরিমান স্টেম সেল থাকে। এই স্টেম সেল গুলো শরীরের যেকোনো কোষে পরিনত হতে পারে এমনকি আমাদের শরীরে প্রতিরক্ষার যে কোষগুলো আছে তাও। জন্মনাড়ি বেশিরভাগ সময়ই জন্মের পরেই কেটে ফেলে দেওয়া হয়। তাতে দেখা যায় এই স্টেম সেল গুলো সম্পূর্ণ পরিমানে নষ্ট হয়। জন্মনাড়ি থেকে প্রাপ্ত স্টেম সেল খুব সহজেই সংগ্রহ করে লম্বা সময়ের জন্য সংরক্ষন করা যায়। পরে এই সংরক্ষিত স্টেম সেল গুলো ল্যাবে কালচার করা যায়। বিজ্ঞানীরা এই জন্মনাড়ি থেকে সংগ্রহ করা স্টেম সেল গুলোকে প্রাধান্য বেশি দিচ্ছেন কারন এর বিভাজিত হবার ক্ষমতা অন্যান্য স্টেম সেল থেকে অনেক বেশি। 

জন্মনাড়ি থেকে স্টেম সেল সংরক্ষন

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সুযোগ করা হয়েছে যেখানে একটি ফোন কলের মাধ্যমে জন্মের পরে জন্মনাড়ি থেকে স্টেম সেল সংগ্রহ করে নেওয়া হয়, যা চাইলে পরে বিভিন্ন শারীরিক সমস্যায় ব্যাবহার করা যায়। অনেক দেশে স্টেম সেল ব্যাঙ্ক খোলা হয়েছে যেখানে খুব সহজেই জন্মনাড়ি থেকে স্টেম সেল সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করা হয়। আমাদের দেশে এই ব্যবস্থাটি এখনো যথেষ্ট পিছিয়ে আছে। স্টেম সেলের ব্যাপারে জ্ঞান এবং কার্যকারীতা সম্পর্কে তাই সকলের জানা উচিত। দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল ও রিসার্চ ফ্যাসিলিটি গুলোয় স্টেম সেল সংরক্ষন এবং গবেষণায় গুরুত্ব দেওয়া উচিত। জন্মনাড়ি ফেলে না দিয়ে তা থেকে প্রাপ্ত স্টেম সেল দ্বারা বিভিন্ন অসুখের মোকাবেলা করা সম্ভব। যদি সঠিক ভাবে বাস্তবায়ন করা যায় জন্মনাড়ি থেকে সংগ্রহীত স্টেম সেল দ্বারা ক্যানসার ও আলজাইমার এর মতো দুরারোগ্য অসুখের চিকিৎসা করা যেতে পারে। স্টেম সেল চিকিৎসা ও গবেষণা ক্ষেত্রের একটি সম্ভাবনাময় ভবিষ্যৎ। সুদূর ভবিষ্যতেই স্টেম সেল সম্পর্কে মানুষ আরো বেশি জানতে পারবে এবং বিভিন্ন রোগের থেকে সুস্থতা পাবে। তাতেই এক আরোগ্য ও সুন্দর পৃথিবী তৈরি করা সম্ভব। 


লেখক- মাকসুদুল ইসলাম

ডিপার্টমেন্টঃ বায়োটেকনোলজি এন্ড জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং ডিসিপ্লিন

ইন্সটিটিউটঃ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়

রেফারেন্সঃ

১। https://www.yourgenome.org/facts/what-is-a-stem-cell

২।https://www.mayoclinic.org/tests-procedures/bone-marrow-transplant/in-depth/stem-cells/art-20048117

৩। Essentials of stem cell biology edited by Robert Lanza

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button