Women and Children

ডাউন সিনড্রোম

বিশ্বে যত ধরনের জিনগত রোগ আছে তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় ‘ডাউন সিনড্রোম’ (Down Syndrome)। আমাদের কোষে অবস্থিত ক্রোমোজোমের অস্বাভাবিকতা এই রোগটির জন্য দায়ী। ক্রোমোজোমের কাজ হল মা-বাবার বৈশিষ্ট্য জিনের মাধ্যমে সন্তান-সন্ততিতে প্রবাহিত করা। মানবদেহের প্রতিটি কোষে ২৩ জোড়া বা ৪৬টি ক্রোমোজোম রয়েছে। কোনো কারণে যদি কোষের ২১ তম ক্রোমোজমটির বাড়তি অনুলিপি থাকে, তখন একে ডাউন সিনড্রোম বলা হয়।  বাড়তি এই ক্রোমোজোমটি দেহ-মনের বিকাশ প্রক্রিয়ায় পরিবর্তন ঘটায়। 

লক্ষণ:

এ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির মধ্যে বাহ্যিক কিছু অস্বাভাবিকতা দেখা যায়। যেমন-

  • চ্যাপ্টা মুখ (বিশেষত নাকের হাড়)
  • বাদাম আকৃতির চোখ (ধারগুলো তীর্যক) 
  • খর্বকায় গ্রীবা
  • খর্বকায় কান
  • মুখের বাইরে বেরিয়ে থাকা জিহ্বা 
  •  সাদা দাগযুক্ত চোখের আইরিশ (অক্ষিগোলকের সামনের লেন্সের ওপর অবস্থিত রঙিন পর্দা)
  • খর্বকায় হাত-পা
  • স্বাভাবিকের তুলনায় কম উচ্চতা

ডাউন সিনড্রোমের মূলত ৩টি ধরণ আছে। এগুলো হল-

১। ট্রাইজোমি ২১ (Trisomy 21):  ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত ৯৫ ভাগ মানুষের রোগটি হয় ট্রাইজোমি ২১ এর কারণে। এ ক্ষেত্রে প্রতিটি দেহকোষে ২১ নম্বর ক্রোমোজোমের ২ এর পরিবর্তে ৩টি অনুলিপি থাকে।  

২। ট্রান্সলোকেশন ডাউন সিনড্রোম (Translocation Down Syndrome): ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত শতকরা ৩ ভাগের এ ধরনের অস্বাভাবিকতা দেখা যায়। এতে ২১ তম ক্রোমোজোমের একটি বাড়তি অংশ থাকে অথবা একটি সম্পূর্ণ বাড়তি অনুলিপিও থাকতে পারে। এই বাড়তি অংশ বা প্রতিলিপিটি ২১ তম ক্রোমোজোম হিসেবে না থেকে অন্য কোনো ক্রোমোজোমের সাথে যুক্ত থাকে অর্থাৎ এই বাড়তি প্রতিলিপি বা অংশটির স্থানচ্যুতি (Translocation) ঘটে। 

৩। মোজাইক ডাউন সিনড্রোম (Mosaic Down Syndrome): শতকরা ২ ভাগ ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত শিশুর মধ্যে এ ধরন দেখা যায়। মোজাইক বলতে বোঝায় সংমিশ্রণ। এক্ষেত্রে, শিশুর দেহের কিছু কোষে ২১ তম ক্রোমোজোমের বাড়তি প্রতিলিপি দেখা যায় আর কিছু কোষে স্বাভাবিক সংখ্যক ক্রোমোজোম থাকে। মোজাইক ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত শিশুদের মধ্যে অস্বাভাবিকতা কম পরিমাণে দেখা যায়, যেহেতু তাদের কিছু কোষের ক্রোমোজোম স্বাভাবিক থাকে। 

এখন পর্যন্ত নিশ্চিতভাবে ডাউন সিনড্রোমের কারণ শনাক্ত করা যায় নি। তবে একটি রিস্ক ফ্যাক্টর নিরূপণ করা গেছে। তথ্য উপাত্ত অনুসারে, মায়ের বয়সের সঙ্গে এর একটি সম্পর্ক আছে বলে জানা যায়। ধারণা করা হয়, যেসব বাচ্চা ৩৫ বছর বা তার বেশি বয়সী মায়ের গর্ভে জন্মায়, তাদের ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেশি। 

শনাক্তকরণ:  

গর্ভকালীন অবস্থায় সম্পূর্ণ নিশ্চিতভাবে ডাউন সিনড্রোমের উপস্থিতি ও এর তীব্রতা বোঝার মত কোনো পরীক্ষা এখনো আবিষ্কৃত হয় নি। 

  • স্ক্রিনিং টেস্ট: এ টেস্টের মাধ্যমে কোনো শিশুর ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা কতটুকু তা জানা যায়। তবে ডাউন সিনড্রোমের উপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায় না। এই টেস্টটি মা ও শিশু উভয়ের জন্যই নিরাপদ।
  • ডায়াগনোস্টিক টেস্ট: এ টেস্টের মাধ্যমে ডাউন সিনড্রোমের উপস্থিতি বা অনুপস্থিতি সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়। কিন্তু শিশুর জীবনে এর প্রভাব কতটা তীব্র হবে, তা জানা যায় না। টেস্টটি মা ও শিশু উভয়ের জন্যই তুলনামূলক বিপজ্জনক।

স্ক্রিনিং টেস্টে শিশুর ডাউন সিনড্রোমের সম্ভাবনা বেশি জানা গেলে, নিশ্চিত হবার জন্য ডায়াগনোস্টিক টেস্ট করা হয়। 

ডাউন সিনড্রোমের ফলে অনেক শিশু তীব্র সমস্যা নিয়ে জন্মগ্রহণ করে।

  • বধিরতা
  • কর্ণপ্রদাহ
  • দৃষ্টিসমস্যা
  • হৃদরোগ
  • ঘুমন্ত অবস্থায় কিছু সময়ের জন্য শ্বাস-প্রশ্বাস বন্ধ থাকা (Obstructive sleep apnea)

এসব সমস্যা থাকলে শিশুকে নিয়মিত চেক আপের মধ্যে রাখতে হয়। 

চিকিৎসা:

ডাউন সিনড্রোম প্রতিকার বা প্রতিরোধের কোনো উপায় এখনো জানা যায় নি। তবে শৈশব থেকেই পর্যাপ্ত পরিচর্যার মধ্য দিয়ে আক্রান্ত বাচ্চার জীবনযাপনকে স্বাভাবিক করা যায়। এসবের মধ্যে রয়েছে বাচিক, শারীরিক ও পেশাগত চিকিৎসা। এছাড়াও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তাদের প্রতি বাড়তি সহায়তা বা মনোযোগ দেয়ার প্রয়োজন পড়ে। যদিও  ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত বহু ছেলেমেয়েই নিয়মিত পাঠ্যক্রমের অন্তর্ভুক্ত। 

বেসরকারি তথ্যমতে, বাংলাদেশে প্রায় দুই লাখের বেশি শিশু ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত। ডাউন সিনড্রোম সোসাইটি অব বাংলাদেশ, সূচনা ফাউন্ডেশন প্রভৃতি বেসরকারি সংস্থা  এদেশে রোগটি নিয়ে কাজ করছে। ডাউন সিনড্রোমে আক্রান্ত শিশুদেরকে বিচ্ছিন্ন না করে, সকলের সহযোগিতা ও উৎসাহে সাধারণের সাথে সম্পৃক্ত রাখলে, তাদের প্রতিভাকে বিকশিত করবার সুযোগ দিলে, তাদের জীবন যেমন সুন্দর হবে, তেমনি আমাদের জাতীয় জীবনও সমৃদ্ধ হবে। 


পঙক্তি আদৃতা বোস

জিন প্রকৌশল ও জীবপ্রযুক্তি বিভাগ,

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, 

ঢাকা-১১০০।

তথ্যসূত্র:

 ১। Facts about Down Syndrome

২। Down Syndrom Society of Bangladesh

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button